অন্য ধর্মের মানুষকে অপমান ও ধর্ম পালনে বাধা দেয়ার বিধান ইসলামের কোথাও নেই : এসপি নারায়ণগঞ্জ

100
 * আলেম ওলামাদের সাথে মতবিনিময়
মিরর বাংলাদেশ : আলেম ওলামা, মাদ্রাসা, মসজিদের ইমাম খতিব ও ধর্মীয় নেতাদের সাথে বিশেষ মতবিনিময় সভা করেছেন নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মাদ জায়েদুল আলম। গতকাল মঙ্গলবার বিকালে নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার কার্যালয়ে তিন তলায় কনফারেন্স রুমে ওই সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় কয়েক দিনের মধ্যে হিন্দু ধর্মীয় নেতাদের সাথেও মতবিনিময় করবেন বলে জানিয়েছেন এসপি।
জেলায় পুলিশের আয়োজনে সভায় উপস্থিত ধর্মী নেতারা পুলিশ সুপার উদ্দেশ্যে করে বলেন, আমাদের ইসলাম ধর্মে স্পষ্ট রয়েছে যা মোটামুটি এ রকম, “যার হাত দ্বারা কোন মুসলমান বা মানুষ ক্ষতিগ্রস্থ হয় সে প্রকৃত মোমেন না”। ইসলামে তৃষ্ণার্ত কুকুরকে পানি খাইয়ে জান্নাত পেয়েছে আবার বিড়ালকে অত্যাচার করে জাহান্নামে গিয়েছে। যেখানে সামান্য প্রাণীকে পানি খাইয়ে ইসলামে জান্নাত পাওয়ার ঘটনা আছে। সেখানে মানুষকে কতটা ভালোবাসতে হবে। আমাদের ইসলামের কোথায় অন্য ধর্মের মানুষকে অপমান বা তাদের ধর্ম পালনে বাধা দেয়ার বিধান নেই। এগুলো যারা করছে বা করে তারা আসলে প্রকৃত মুসলমান নয়। এরা বেশধারী মুসলিম।
ওলামারা আরও বলেন, ফেসবুকে গুজব বন্ধ করতে হবে। দুই বছর তিন বছর আগের ঘটনা মাত্র ঘটেেেছ বলে গুজব ছড়ানো হচ্ছে। এগুলো অনেক ক্ষতি করছে।
ওই সময় জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মাদ জায়েদুল আলম ধর্মীয় নেতাদের উদ্দেশ্যে বলেন, সমাজে আলেম ওলামাদের কথা সবাই মন দিয়ে শোনেন। আপনাদের দায়িত্ব যারা ইসলামের নামে ইসলাম অশান্তির ধর্ম হিসাবে বোঝাতে চাচ্ছে সেখানে ইসলাম কতটা শান্তির ধর্ম ও অন্য ধর্মের প্রতি মুসলমানদের দায়িত্ব কর্তব্য কতটা তা মুসল্লীদের জানানো। মানুষ ইমামদের কথা মন দিয়ে শোনে। দেশে চক্রান্ত চলছে তা সবাই এখন বুঝতে পারছে। এই সময় আপনার দায়িত্বশীল হয়ে রাষ্ট্রের জন্য কাজ করুণ। আপনাদের দোয়ায় আল্লাহর রহমতে কোন ষড়যন্ত্র কাজে আসবে না। কারণ আমাদের দেশে সকল ধর্মের মধ্যে রয়েছে ভ্রাতৃত্বেবোধ।
ওই সময় সভায় আলেম ওলামারা হিন্দু ধর্মীয় নেতাদের সাথে একই বিষয়ে সভা করার অনুরোধ করলে এসপি বলেন, আমি আগামী বৃহস্পতিবারে মধ্যে হিন্দু ধর্মীয় নেতাদের সাথে একইভাবে মত বিনিময় করবো। আপনাদের সাথে সভা করার আগেই এ সিদ্ধান্ত নিয়েছি। এরপর আপনাদেরকে নিয়ে এক সাথে নিয়ে এগিয়ে যাবো। সারা নারায়ণগঞ্জ খুব শান্তিতে আছে। আমরা এ শান্তি বজায় রাখতে চাই। সেখানে আমাদের নারায়ণগঞ্জ থেকে আমরা সকল ধর্মের মানুষ একে অপরের প্রতি ভালোবাসা ছড়িয়ে দিতে চাই।
সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন, নারায়ণগঞ্জ জেলা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার(ডিএসবি) শফিউল ইসলাম ও ডিস্ট্রিক ওয়ান অফিসার শেখ কবিরুল ইসলাম।
আলেম ওলামাদের মধ্যে আরো উপস্থিত ছিলেন ফতুল্লা মাসদাইর বাইতুস সালাম জামে মসজিদের পেশ ইমাম ও খবিত মূসা আল হাবিব, শহরের দেওভোগ বড় জামে মসজিদের ইমাম মহিউদ্দিন হামিদী, মাসদাইর বাড়িভৌগ জামে মসজিদের ইমাম আল আমীন, ইমাম মোজ্জাম্মেল হক, পাগলা বাজার জামে মসজিদের খতিব আনোয়ার হোসেন, মাসদাইর আল আমীন মসজিদের ইমাম মো: ইউসুফ, ইসদাইর শাহী জামে মসজিদের খাদেম মো: সাইফুল্লাহ, দেলপাড়া মসিজদের খতিব মনিরুল ইসলাম, মো. শেখ সাদী, হাফেজ ইকবাল হাসান আজাদ, মাওলানা মাহাদী হাসান, মহানগর ওলামা পরিষদ সভাপতি ফৌরদাউসুর রহমান, জামিয়া কারিমিয়া মাদ্রাসা মোহতামিম আবু সায়েম খালেদ, দেওভোগ মাদ্রাসা শিক্ষক মাওলানা হারুন অর রশীদ, ফতুল্লা বিসিক মসজিদের ইমাম আব্দুস সবুরসহ প্রমুখ।

You sent