আমি নিজেই জানি আমার থেকে বড় মাস্তান আর কেউ নাই : শামীম ওসমান

721

মিরর বাংলাদেশ: নারায়ণগঞ্জে সন্ত্রাসী ও মাস্তানদের প্রশ্রয় না দিতে পুলিশ প্রশাসনের প্রতি আহবান জানিয়েছেন সংসদ সদস্য শামীম ওসমান।

রোববার দুপুরে নারায়ণগঞ্জ পুলিশ লাইনসে পুলিশ মেমোরিয়াল ডে উপলক্ষ্যে জেলা পুলিশ আয়োজিত আলোচনা সভা ও সম্মাননা প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে স্থানীয় সংসদ সদস্য শামীম ওসমান এ আহবান জানান।
শামীম ওসমান বলেন, ‘আমার কাছের লোক হলেও আপনারা কাউকে খাতির করবেন না। কোনো মাস্তান, বন্দুকবাজ ও লাঠিয়াল বাহিনীর আমার দরকার নেই। কারণ আমি নিজেই জানি আমার থেকে বড় মাস্তান আর কেউ নাই।
তিনি বলেন, নারায়ণগঞ্জে পুলিশ প্রশাসনের কিছু সংখ্যক লোকের কারণে আমাদের অনেক ক্ষতি হয়েছে। আমাদের অন্য কোন দলকে দমন করার জন্য পুলিশের দরকার নেই। নারায়ণগঞ্জে আমরা একলাই যথেষ্ট।’
শামীম ওসমান বলেন, রাতের বেলা ডাকলে এখনো ২ লাখ লোক বের করতে ১ ঘন্টা সময় লাগে ওই ক্যাপাসিটি আমার আছে। উণআশি সনে জিয়াউর রহমানকে আটকে রাখার লোক আমরা। কিভাবে আন্দোলন করতে হয় আর কিভাবে আন্দোলন ঠেকাতে হয় আমরা সেটা জানি।
অতীতের কথা উল্লেখ করে শামীম ওসমান বলেন, ২০০১ সালের আগে পুলিশ ফোর্সের কাছে যত আস্ত্র না ছিল তার থেকে বেশি অস্ত্র একা আমার নিজের কাছেই ছিল। তবে আজকে আমার গাড়িতে অস্ত্র আছে কিনা তা আমি নিজেও জানি না। আমি সবসময় মনে করি আমি বিরোধী দল, আমি সাধারণ মানুষের দল।
নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক এবং পুলিশ সুপারকে সৎ ব্যক্তি হিসেবে উল্লেখ করে শামীম ওসমান বলেন, আমি একজন জনপ্রতিনিধি সংসদ সদস্য হিসেবে নয়, জনগণ হিসেবেই তাদের প্রত্যেকটি কথায় টের পাই তারা জনগণের কাছে দায়বদ্ধ থাকতে চান। তাদের নিয়ে আমি গর্ব করি।
জেলা পুলিশ সুপার মোঃ জাহেদুল আলমের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরো বক্তব্য রাখেন সংসদ সদস্য লিয়াকত হোসেন খোকা, জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ আনোয়ার হোসেন। আলোচনা সভা শেষে কর্মরত অবস্থায় নিহত হওয়া পুলিশ সদস্যদের পরিবারকে সম্মননা ও আর্থিক অনুদান প্রদান করা হয়। এর আগে পুলিশ মেমোরিয়াল ডে উপলক্ষ্যে জেলা পুলিশ প্রশাসনের উদ্যোগে নগরীতে বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের করা হয়। র‌্যালিটি নগরীর প্রধান সড়ক ঘুরে পুলিশ লাইনসে গিয়ে শেষ হয়।