আহা মৃত্যু !

555

মিরর বাংলাদেশ : করোন পরীক্ষা করাতে এসে   শাহবাগের একটি হাসপাতালের নিচেই রোববার  মারা গেলেন মোহাম্মদপুরের বাসিন্দা আব্দুর রাজ্জাক। তার মর্মান্তিক মৃত্যু নিয়ে জামান সামস তার  ফেসবুকে লিখেছেন

আজ তুমি রাজার আসনে, কাল হতে পারো নির্বাক লাশ

বেশ কয়েকদিন ধরে জ্বরে ভুগছিলেন রাজধানীর মোহাম্মদপুরের বাসিন্দা বয়োবৃদ্ধ আব্দুর রাজ্জাক (৬৩)। করোনা উপসর্গ নিয়ে কাল ভোরে মোহাম্মদপুর থেকে এসেছিলেন শাহবাগে একটি হাসপাতালে করোনা পরীক্ষা করাতে।

দীর্ঘসময় লাইনে থাকলেও সিরিয়াল পাননি। অগত্যা বাসার দিকে পা বাড়ান। একটু সামনে যেতেই তার বুকে ব্যাথা ওঠে। একপর্যায়ে রাস্তায় পড়ে গিয়ে সেখানেই মারা যান এই বয়োজ্যেষ্ঠ।

তার সঙ্গে দুই ছেলে উপস্থিত ছিলেন। কিন্তু অসহায়ের মতো ছটফট করে বাবার মৃত্যু দেখা ছাড়া তাদের আর কিছুই করার ছিল না।

রাজ্জাকের বড় ছেলের অভিযোগ, রাস্তায় পড়ে যখন তার বাবা ধড়ফড় করছেন, তখন বাবাকে বাঁচাতে ছুটে গিয়েছিলেন হাতের কাছের বারডেম হাসপাতালের জরুরি বিভাগে। সেখানে পাত্তা পাননি তিনি। লাশ ঢাকতে একটা কাপড় চেয়েও মেলেনি। অথচ পেশাগত জীবনে রাজ্জাক ছিলেন কাপড় ব্যবসায়ী।

পরে পুলিশের তত্ত্বাবধানে তার মরদেহ থেকে নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। খুব খারাপ লাগলো যে, বেঁচে থাকতে করোনা পরীক্ষার সিরিয়াল পেলেন না। পরীক্ষা তো হবে কিন্ত সেটা নিষ্প্রান দেহের,দেহে প্রাণ থাকতে যার প্রয়োজন ছিলো ! এই পরীক্ষার ফল দিয়ে জাতিরই বা কি উপকার হবে।

আল্লাহ!তুমি জন্ম ও মৃত্যর মালিক।উনাকে তুমি সর্বশ্রেষ্ঠ ক্ষমা মন্জুর করো এবং শহীদী মর্যাদায় জান্নাত দান করো।