এমন মৃত্যু আমরা চাই না

219

দূর্ঘূটনা্য় নিহত শিশু কন্যা বুলবুলিকে আকড়ে ধরে আছেন বাবা  শাহজাহান

মিরর প্রতিনিধি, ময়মনসিংহ

ময়মনসিংহের ফুলপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় নারী ও শিশুসহ আটজন নিহত হয়েছেন। মঙ্গলবার সকাল পৌণে আটটার দিকে ময়মনসিংহ-শেরপুর সড়কের ফুলপুর উপজেলার বাসাটি নামক স্থানে এই দুর্ঘটনা ঘটে। এতে ঘটনাস্থলেই এক শিশু, পাঁচজন নারী ও দুইজন পুরুষ নিহত হন। মুমূর্ষু অবস্থায় চারজনকে উদ্ধার করে ফুলপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

হতাহত সবাই নিকট আত্মীয় এবং ময়মনসিংহ জেলার গফরগাঁও, ভালুকা ও তারাকান্দা উপজেলার বাসিন্দা। তারা শেরপুর জেলার নালিতাবাড়ি উপজেলার বারোমারিতে হাসান আলী নামে তাদের এক আত্মীয়ের জানাজায় শরিক হওয়ার উদ্দেশ্যে যাচ্ছিলেন বলে জানা গেছে।

ফুলপুর থানার ওসি ইমারত হোসেন গাজী জানান, ময়মনসিংহের ভালুকা থেকে যাত্রীবোঝাই একটি মাইক্রোবাস শেরপুর জেলার নালিতাবাড়ি উপজেলার বারোমারি যাবার পথে সকাল পৌণে ৮টার দিকে ময়মনসিংহ-শেরপুর সড়কের ফুলপুর উপজেলার বাসাটি নামক স্থানে এই দুর্ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে ফুলপুর পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের লোকজন স্থানীয়দের সহযোগিতায় হতাহতদের উদ্ধার করে। মাইক্রোবাসটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে একটি গাছের সাথে ধাক্কা খেয়ে পুকুরে পড়ে ডুবে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই আটজন নিহত হয়। নিহতদের মধ্যে এক শিশু, পাঁচজন নারী ও দুইজন পুরুষ রয়েছে। মাইক্রোবাসটিতে চালকসহ ১৪ জন যাত্রী ছিলো।

নিহতরা ময়মনসিংহ জেলার গফরগাঁও, ভালুকা ও তারাকান্দা উপজেলার বাসিন্দা। তারা হলেন- গফরগাঁও উপজেলার আঠারোদানা গ্রামের এলাহি বক্সের স্ত্রী রেজিয়া খাতুন (৭০), একই গ্রামের রতন মিয়ার মেয়ে রিপা আক্তার (২৫), মশাখালি গ্রামের হাফিজ উদ্দিনের স্ত্রী পারুল বেগম (৪৫) ও মৃত আইয়ুব আলীর ছেলে শামসুল হক (৫৫), ভালুকা উপজেলার বিরুনিয়া গ্রামের শাহজাহান মিয়ার স্ত্রী বেগম (৩০), তারাকান্দা উপজেলার দাদরা গ্রামের নবী হোসেন (৩০), ভালুকা উপজেলার শাহজাহানের শিশু কন্যা বুলবুলি (৫) ও সামমুন শেখের স্ত্রী মিলন (৬০)।

মুমূর্ষু অবস্থায় উদ্ধারকৃত জীবিতরা হলেন, গফরগাঁও উপজেলার আঠারোদানা গ্রামের এলাহি বক্সের ছেলে রতন মিয়া (৫৩), মশাখালী গ্রামের মৃত উসমানের ছেলে হাবি (৫৫), ভালুকা উপজেলার কাইচান গ্রামের মিলনের ছেলে মিজান (২৮) ও রাজৈ গ্রামের আবুল কালামের ছেলে সোহরাব (২৮)। তাদেরকে ফুলপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেয়া হয়।

এদিকে, দুর্ঘটনার পর ময়মনসিংহ-শেরপুর সড়কের বাসাটির দুর্ঘটনাস্থলে শত শত মানুষ ভিড় করে। এতে যানবাহন চলাচল ব্যাহত হয়।