এ কে এম সামসুজ্জোহার ৩৩তম মৃত্যুবার্ষিকী বৃহস্পতিবার

673

মিরর বাংলাদেশ: বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঘনিষ্ঠ সহচর, মহান স্বাধীনতা সংগ্রামের অন্যতম সংগঠক, ভাষা সৈনিক ও স্বাধীনতা পদকে(মরোণত্তর) ভূষিত মরহুম একেএম সামসুজ্জোহার ৩৩ তম মৃত্যুবার্ষিকী বৃহস্পতিবার । তিনি ছিলেন আওয়ামীলীগের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা সদস্য, গণ পরিষদের সদস্য ও স্বাধীনতা পরবর্তী জাতীয় সংসদ সদস্য। মরহুম একেএম সামসুজ্জোহা ঐহিত্যবাহী ওসমান পরিবারে জন্ম গ্রহণ করেন। তার পিতা মরহুম খান সাহেব ওসমান আলীও ছিলেন একজন ভাষা সৈনিক ও সাবেক এমএনএ।
মরহুম সামসুজ্জোহার সহধর্মীনি ও রতœগর্ভা নাগিনা জোহাও ছিলেন ভাষা সৈনিক। তাঁর বড় ছেলে মরহুম নাসিম ওসমান এমপি বঙ্গবন্ধুর হত্যার প্রতিশোধ নিতে ১৯৭৫ এর ১৫ আগস্ট নববধুকে ঘরে রেখেই প্রতিরোধ যুদ্ধে যোগ দিয়েছিলেন। এরপর সামসুজ্জোহাকে গ্রেফতার করা হয় এবং ১৯৭৫সালের ৩ নভেম্বর জাতীয় ৪ নেতার হত্যাযজ্ঞের সময় তিনি ও শহীদ জাতীয় নেতা ক্যাপ্টেন মনসুর আলী একই সেলে বন্দি ছিলেন। সামসুজ্জোহা ছিলেন ঐ কলঙ্কিত ইতিহাসের অন্যতম স্বাক্ষী। মরহুম সামসুজ্জোহার মেঝ ছেলে বিকেএমইএ’র সভাপতি একেএম সেলিম ওসমান এমপি ও ছোট ছেলে একেএম শামীম ওসমান এমপি একাধিকবার জাতীয় সংসদের সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন। মহান মুক্তিযুদ্ধে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখায় মরহুম সামসুজ্জোহাকে ২০১২ সালে স্বাধীনতা পদক (মরণোত্তর) এ ভূষিত করা হয়।
এদিকে দিনটি উপলক্ষ্যে মরহুমের পরিবার ও নারায়ণগঞ্জ আওয়ামীলীগ ও সহযোগী সংগঠন দিনভর কর্মসূচী পালন করবে। দিনব্যাপী নানা কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে পবিত্র কোরআনখানি, শোক র‌্যালী, কবরে পুষ্পস্তবক অর্পণ ও জিয়ারত, দোয়া মিলাদ ও আলোচনা সভা। মরহুমের পরিবারের পক্ষ থেকে মেঝ ছেলে সেলিম ওসমান এমপি ও ছোট ছেলে আওয়ামীলীগ নেতা একেএম শামীম ওসমান এমপি সকলকে রুহের মাগফেরাত কামনায় চাষাড়াস্থ পৈত্রিক বাড়ি হীরা মহল সংলগ্ন মসজিদে আজ বাদ আছর আয়োজিত মিলাদ ও দোয়ায় অংশগ্রহন করার আবেদন জানিয়েছেন। ##