করাচির বিমান দুর্ঘটনায় ৯৭ মৃত্যু, জীবিত উদ্ধার ২

264

মিরর বাংলাদেশ : পাকিস্তানের দক্ষিণাঞ্চলীয় বন্দরনগরী করাচিতে শুক্রবারের বিমান দুর্ঘটনায় অন্তত ৯৭ জনের মৃত্যু হয়েছে এবং জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে ২ জনকে। স্থানীয় স্বাস্থ্য বিভাগের বরাতে এ খবর জানিয়েছে বার্তাসংস্থা এএফপি।

এর আগে, শুক্রবার (২২ মে) পাকিস্তান ইন্টারন্যাশনাল এয়ারলাইন্সের (পিআইএ) একটি বিমান করাচি বিমান বন্দরে অবতরণের চেষ্টাকালে সংলগ্ন আবাসিক এলাকার ওপর ভেঙ্গে পড়ে।
পরে অনেক রাত পর্যন্ত বিমান দুর্ঘটনায় পতিতদের উদ্ধারে অভিযান চলে।
এ ব্যাপারে সিন্ধু প্রদেশের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের, দুর্ঘটনাস্থল থেকে বিমানটির সকল আরোহী ও ক্রুদের মধ্যে দুইজনকে জীবিত এবং বাকি দের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছ। এদের মধ্যে ১৯ জনের মৃতদেহ শনাক্ত করা সম্ভব হয়েছে।
এদিকে কয়েকজন প্রত্যক্ষদর্শী এএফপি’কে জানিয়েছেন, তারা বিধ্বস্ত এলাকা থেকে অনেকগুলো লাশ উদ্ধার করতে দেখেছে। শনিবার (২৩ মে) সকালেও এলাকাটি ঘিরে রেখেছিল আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।
আর এমন ভয়ঙ্কর দুর্ঘটনার পরেও বিস্ময়করভাবে প্রাণে বেঁচে গেছেন বিমানের দুই যাত্রী। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সিন্ধের স্বাস্থ্যমন্ত্রীর মিডিয়া কোঅর্ডিনেটর মীরান ইউসুফ। তিনি জানান, বেঁচে যাওয়া যাত্রীদের একজন হলেন ব্যাংক অব পাঞ্জাবের প্রেসিডেন্ট জাফর মাসুদ, আরেকজনের নাম জুবাইর।
মীরান বলেন, ‘জুবাইয়েরের শরীরের ৩৫ শতাংশ পুড়ে গেছে, তাকে করাচি সিভিল হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। জাফর মাসুদের চারটি হাঁড় ভেঙে গেছে। তিনি দারুল সেহাত হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। তাদের দুজনের অবস্থাই স্থিতিশীল।’
দুর্ঘটনায় বেঁচে যাওয়া আরেকজনকে প্রথমে প্লেনের যাত্রী ভাবা হলেও পরে জানা গেছে তিনি স্থানীয় বাসিন্দা।
অন্যদিকে পিআইএ বলেছে, এ৩২০ এয়রবাসটি লাহোর থেকে করাচি যাচ্ছিলো। এটি অবতরণের ঠিক আগে বেলা দুইটা ৩০ মিনিটের দিকে বিধ্বস্ত হয়। পবিত্র মাহে রমযান শেষে ঈদুল ফিতরের উৎসবের প্রাক্কালে নিজ নিজ এলাকায় ফেরার মুহূর্তে মর্মান্তিক দুর্ঘটনায় পতিত হলেন পাকিস্তানের প্রায় শত নাগরিক।
পিআইএ’র মুখপাত্র আব্দুল্লাহ হাফিজ জানান, বিধ্বস্তের সময় প্লেনটিতে ৯১ যাত্রী ও আটজন ক্রু ছিলেন।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, বিমানটি অন্তত দুই থেকে তিনবার বিমানবন্দরে ল্যান্ডিংয়ের চেষ্টা করেছিল। পরে আবাসিক এলাকার মধ্যে একটি মোবাইল টাওয়ারের সঙ্গে ধাক্কা লেগে ভবনের ওপর বিধ্বস্ত হয়। এর পরপরই বিমানটিতে দাউদাউ করে আগুন ধরে যায়।