করোনা দুর্যোগে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে কাজ করছেন ৪হাজার৫৭১ ইউপি সচিব

780

* স্বাস্থ্যবীমা ও প্রণোদনা  দাবি বাপসার   

মিরর বাংলাদেশ :  সারাবিশ্বের মানুষ করোনাভাইরাসে আতঙ্ক, মানুষ ঘর বন্দী। কিন্ত  ইউপি সচিবরা ঘরে বসে নেই, সারা বাংলাদেশে ৪ হাজার ৫ শত ৭১ জন ইউপি সচিব জীবনটাকে বাজি রেখে করোনাভাইরাস প্রতিরোধে জনসচেতনতা মাঠ পর্যায়ের সরকারের সকল কাজ বাস্তবায়নে ঝুঁকি নিয়ে দায়িত্ব পালন করছেন একযোগে । তবে এজন্য ইউ,পি সচিবদের সংগঠন বাংলাদেশ ইউনিয়ন পরিষদ সচিব সমিতি (বাপসা) সরকারী প্রণোদনা ও স্বাস্থ্যবীমার অন্তর্ভুক্তির দাবী জানিয়েছেন।জানা যায়, ইউনিয়ন পরিষদ সচিবরা এই দুর্যোগকালীন মুহুর্তে দু:স্থ অসহায় রিক্সাচালক, ভ্যান চালক, ‍সি এন জি চালক,পরিবহন শ্রমিক, কর্মহীন দিনমজুর,ফেরিওয়ালা, প্রতিবন্ধি, বেদে, হিজড়া, ভবঘুরে, ভিক্ষুক, কৃষি শ্রমিক, মৎসজীবি, রেস্টুরেন্ট হোটেল শ্রমিক, চায়ের দোকানদার,ও অন্যান্য উপকার ভোগীদের তালিকা জনপ্রতিনিধিদের সহায়তায় প্রস্তুত করতে মাঠ পর্যায়ে কাজ করছেন ইউ,পি সচিবরা। বিভিন্ন মন্ত্রণালয়, জেলা প্রশাসন ও উপজেলা প্রশাসনের বিভিন্ন প্রকার দাপ্তরিক কাজ রিপোর্ট/ রিটার্নপ্রেরন, জরুরী ত্রাণ, কার্যক্রম হিসেবে ভিজিএফ, ভিজিডি, জিআর চাল উত্তোলণ, গুদামজাতকরণ ও বিতরণ। ইউনিয়ন করোনাভাইরাস প্রতিরোধ কমিটির সদস্য হিসেবে প্রবাসীদের তালিকা তৈরী, হোম কোয়ারেন্টাইন নিশ্চিত করছেন। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে প্রতিদিন জনগণের দ্বারে দ্বারে সেবা প্রদান করছেন তারা । এই বিষয়ে “বাংলাদেশ ইউনিয়ন পরিষদ সচিব সমিতি (বাপসা) এর সাধারন সম্পাদক মো:দেলওয়ার হোসেন বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী  শেখ হাসিনার নির্দেশনার আলোকে সারা বাংলাদেশের ৬৪ জেলার ৪৫৭১ জন ইউনিয়ন পরিষদ সচিব জীবনের ঝুঁকি নিয়ে নোভেল করোনাভাইরাস প্রতিরোধে জেলা ও উপজেলা প্রশাসনের সাথে কাজ করে যাচ্ছেন। আমরা প্রনোদণার অন্তর্ভূক্তি ও স্বাস্থ্যবীমার দাবী জানাচ্ছি।

এব্যাপারে বাংলাদেশ ইউনিয়ন পরিষদ সচিব সমিতি (বাপসা)এর সাধারন সম্পাদক মো: দেলওয়ার হোসেন বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার সময় উপযোগী সিদ্ধান্ত “ করোনাভাইরাসের ঝুঁকি নিয়ে যারা কাজ করবেন তাদের পুরস্কৃত করাসহ স্বাস্থ্যবীমা প্রদানের ঘোষণা দিয়েছেন। এমতাবস্থায় ইউনিয়ন পরিষদ সচিবদের সুরক্ষা ও স্বাস্থ্যবীমা প্রদানসহ ‘করোনাভাইরাস যোদ্ধা হিসেবে ঘোষিত প্রনোদণার অন্তর্ভুক্ত করনের নিমিত্তে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় ,জেলা প্রশাসন, উপজেলা প্রশাসনের সংশ্লিষ্ট সকলকে জরুরী ভিত্তিতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য বিশেষভাবে অনুরোধ জানান। প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন ‘করোনাভারাসের ’ঝুঁকি নিয়ে যারা কাজ করবেন তাদের পুরস্কৃত করাসহ স্বাস্থ্যবীমা প্রদানের ঘোষণা দিয়েছেন। ইউনিয়ন পরিষদ সচিবদের স্বাস্থ্য সুরক্ষা ও স্বাস্থ্যবীমা প্রদানসহ করোনাভাইরাস যোদ্ধা হিসেবে ঘোষিত প্রনোদণার অন্তর্ভুক্ত করার দাবী জানাই।