জমে উঠেছে হবিগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচন, স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থীর পাল্লা ভারি

491

মহসীন হোসেন : হবিগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনের দিনক্ষণ যতই ঘনিয়ে আসছে ততই জমতে শুরু করেছে প্রার্থীদের নির্বাচনী প্রচার প্রচারনা। কি মেয়র কি কাউন্সিলর প্রার্থী। কারো চোখেই যেন ঘূম নাই। কাক ডাকা ভোর থেকে শুরু করে গভীর রাত পর্যন্ত ভোটারদের দ্বারে দ্বারে ছুটে চলছেন সলক প্রার্থী।

অপরদিকে মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীদের পক্ষে প্রচারনায় অংশ নেয়া অসংখ্য মাইকের শব্দে এক ভিন্ন আমেজ সৃস্টি হয়েছে পুরো হবিগঞ্জ পৌর এলাকা জুড়ে। এ যেন কোন এক উৎসবে পরিনত হয়েছে। তবে যে যেভাবেই প্রচারণা চালাক না কেন, মেয়র প্রার্থী বাছাই নিয়েই ভোটারদের মাঝে চলছে জোর আলোচনা। করছেন চুলচেরা বিশ্লেষণ। দলমতের উধ্বেউঠে যোগ্য ব্যক্তিকে মেয়র মেয়র নির্বাচিত করার উপরই জোর বিশ্লেষণ করতে দেখা যাচ্ছে সর্বত্র।

গত কয়েকদিন নির্বাচনী মাঠ পর্যবেক্ষণ করে এমনই চিত্র পাওয়া গেছে। তাই বলে যে ক্ষমতাসীন দল বা বিরোধী দল বিএনপির মেয়র প্রার্থীরা আলোচনায় নেই তা কিন্তু নয়। মূলত ৬ জন মেয়র প্রার্থীর মধ্যে প্রধান দুই দলের দুই প্রার্থী সহ বর্তমান মেয়র তথা দলীয় মনোনয়ন বঞ্চিত স্বতন্ত্র প্রার্থী মিজানুর রহমান মিজান ও অ্যাড. গাজী পারভেজ হাসান রয়েছেন ভোটারদের আলোচনার শীর্ষে।

এ চারজনের মধ্য থেকে যোগ্য একজনকে আগামীর পৌর পিতা হিসেবে বেঁছে নিতে চাইছেন তারা। অবশ্য যদিও আওয়ামী লীগ ও বিএনপির নিজস্ব ভোট ব্যাংক রয়েছে তথাপি এই দুই দলের একটা অংশ সহ নিরপেক্ষ ভোটাররা আসন্ন নির্বাচনের মধ্য দিয়ে পরিবর্তন আনতে চাইছেন। আর সেই পরিবর্তনটা আনতে চাইছেন-যে কিনা উচ্চ ও সুশিক্ষায় শিক্ষিত, ভদ্র, মার্জিত ও লোভহীন। প্রার্থী হিসেবে এমন কেউ কি আছেন? এমন প্রশ্নের জবাবে পরিচয় প্রকাশ না করার শর্তে একাধিক ভোটার বলেন- এমন প্রার্থী একজনই আছেন, আর তিনি হলেন স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী অ্যাড. গাজী পারভেজ হাসান। যার মার্কা জগ।

তারা বলেন, যদ্দুর জানি বা শুনেছি অ্যাড. গাজী পারভেজ হাসান ইংল্যান্ড থেকে আইন পেশায় মাষ্টার ডিগ্রি অর্জন করে দেশে এশে বর্তমানে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ও বর্তমান সরকারের সাবেক আইনমন্ত্রী শফিক আহাম্মেদের চেম্বারে সিনিয়র এসোসিয়েট হিসেবে কর্মরত রয়েছেন। এছাড়া তার প্রয়াত বাবা গাজী আবদুল হান্নান সাহেব জেলা ও দায়রা জজ ছিলেন। তাছাড়া তার পরিবারের অন্যান্য সদস্যরাও সরকারের বিভিন্ন উচ্চ পর্যায়ে কর্মরত আছেন। মূলত একটি অভিযাত পরিবারের সন্তান সন্তান হওয়া সত্বেও তার মধ্যে অহংকারমূলক কোন বিষয় আজ পর্যন্ত কারো নজরে আসেনি।

অতি সাধারণভাবে চলাফেরা সহ যখনতখন যেকোন পরিবেশে একজন কৃষক কিংবা রিকশা চালকের সাথে বসে চা খেতেও দ্বিধাবোধ করেন না তিনি। কেউ কেউ আবার বলেন, জগ মার্কা নিয়ে মেয়র পদে নির্বাচনে অংশ নেয়ার পর থেকে গাজী পারভেজ হাসান তার প্রচারনায় একটি কথা বার বারই বলছেন, নির্বাচিত হলে হবিগঞ্জকে তিনি ইংল্যান্ডের আদলে একটি পরিচ্ছন্ন নগরী গড়ে তুলবেন। তাই তার এমন প্রতিশ্রুতিকে আমলে নিয়ে দলমত নির্বিশেষে তাকে নিয়ে ভাবতে শুরু করেছেন হবিগঞ্জ পৌরবাসী। শেষ পর্যন্ত সর্বস্তরের ভোটরাগন পৌর পিতা হিসেবে কাকে বেঁছে নেন তা দেখতে হলে আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারী রাত পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে।