ট্রাম্পের বক্তব্যে আস্থা হারাচ্ছেন মার্কিন নাগরিকরা : জরিপ

535

মিরর বাংলাদেশ : চলমান বৈশ্বিক করোনা মহামারি বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট মি. ডোনাল্ড ট্রাম্পের বক্তব্যের ওপর আস্থা হারাচ্ছেন মার্কিন নাগরিকরা। লন্ডনভিত্তিক আন্তর্জাতিক সংবাদ সংস্থা ‘রয়টার্স’ এর সর্বশেষ (এপ্রিল মাস) জরিপে এমন তথ্য উঠে আসে।

অনলাইনে ইংরেজি ভাষায় পরিচালিত রয়টার্সের এ জরিপে এক হাজার একজন প্রাপ্তবয়স্ক মার্কিন নাগরিক অংশ নেন। তাদের মধ্যে ৪১৬ জন ডেমোক্র্যাট এবং ৪১৯ জন রিপাবলিকান।
যুক্তরাষ্ট্রের করোনা ভাইরাস বিষয়ক দৈনিক ব্রিফিংয়ে নিয়মিত উপস্থিত থাকেন ট্রাম্প। সম্প্রতি করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত ব্যক্তিকে শরীরে জীবাণুনাশক ইনজেকশনের মাধ্যমে সুস্থ করে তোলা সম্ভব কিনা তা নিয়ে গবেষণা করার পরামর্শ দেন তিনি। এমনকি অতিবেগুনি রশ্মি শরীরে দিয়ে রোগীকে সুস্থ করা তোলা যায় কিনা তা নিয়ে গবেষণার পরামর্শও তিনি দিয়েছেন। এর কয়েকদিন পরেই আবার বলেন ‘ঠাট্টা’ করে এ মন্তব্য করেছেন তিনি। এসব মন্তব্যের কারণে নভেল করোনা ভাইরাস বিষয়ে তার বক্তব্যে আর আস্থা রাখতে পারছেন না মার্কিন নাগরিকরা।
মঙ্গলবার প্রকাশিত রয়টার্সের জরিপের ফলাফল থেকে জানা যায়, প্রাপ্তবয়স্ক মার্কিন নাগরিকদের অর্ধেকেরও কম মানুষ (৪৭ শতাংশ) জানান, ভাইরাস বিষয়ে ট্রাম্পের পরামর্শ তারা অনুসরণ করতে যাচ্ছেন বা অনুসরণ করার কথা ভাবছেন।
আগের মাসে (মার্চ) পরিচালিত জরিপের ফলাফল অনুযায়ী, ট্রাম্পের পরামর্শ মানতে চাওয়া মানুষের সংখ্যা আরও ১৫ শতাংশ বেশি ছিল।
জরিপে অংশ নেওয়া ৯৮ শতাংশ মার্কিন নাগরিক জানান, করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হলে তারা ব্লিচ বা অন্য জীবাণুনাশক ইনজেকশনের মাধ্যমে নিজের শরীরে নেবেন না।
অধিকাংশ মার্কিন নাগরিক জানান, কীভাবে করোনা ভাইরাসটি ছড়াচ্ছে এনিয়ে তারা উদ্বেগে রয়েছেন। যুক্তরাষ্ট্রে ভাইরাসটিতে আক্রান্তের সংখ্যা ১০ লাখ ছাড়িয়েছে এবং মারা গেছেন ৬১ হাজারেরও বেশি মানুষ।
এ অবস্থায় সংবাদ সম্মেলনে ট্রাম্প পরামর্শ দিয়েছেন, কভিড-১৯ রোগীদের শরীরে জীবাণুনাশক ইনজেকশন দিয়ে তাদের সুস্থ করা তোলা যায় কিনা, তা নিয়ে গবেষণা করা উচিত। এ বক্তব্যের পরপরই চিকিৎসা বিশেষজ্ঞদের সমালোচনা ও নিন্দার শিকার হন তিনি।
এমনকি জীবাণুনাশক প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠানগুলো এ ধরনের দ্রব্য খাওয়া বা পান না করার জন্য সতর্ক করেন। পরে ট্রাম্প দাবি করেন, তিনি ঠাট্টা করে এ মন্তব্য করেছেন। কিন্তু স্বাস্থ্য কর্মকর্তাদের আশঙ্কা, ট্রাম্পের বিপুল জনপ্রিয়তার কারণে অনেকে তার পরামর্শ মেনে জীবাণুনাশক খাওয়া বা পান করতে পারেন।
এসব বক্তব্যের কারণে অবশ্য ট্রাম্পের জনপ্রিয়তা তেমন কমেনি। ৪৩ শতাংশ মার্কিন নাগরিক মনে করেন, ট্রাম্প তার দায়িত্ব ঠিকভাবেই পালন করছেন এবং কভিড-১৯ মহামারি ঠিকভাবেই মোকাবিলা করছেন।
তালিকাভুক্ত ভোটারদের মধ্যে ৪৪ শতাংশ জানান, তারা প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডেমোক্র্যাট দলের প্রার্থী জো বাইডেনকে ভোট দেবেন। তবে ৪০ শতাংশ জানান, আজই নির্বাচন হলে তারা ডোনাল্ড ট্রাম্পকে ভোট দিতেন।