নারায়ণগঞ্জের প্রাণপুরুষ শামীম ওসমান এমপি’র জন্মদিন আজ

500

মিরর বাংলাদেশ : নারায়ণগঞ্জের প্রাণ পুরুষ, উন্নয়নের মাধ্যমে বদলে দেয়া নারায়ণগঞ্জের রুপকার, নারায়ণগঞ্জ-৪  আসনের সংসদ সদস্য এ কে এম  শামীম ওসমান জন্মদিন আজ সোমবার ২৮ ফেব্রুয়ারী।  ৬১ বছরে পা রাখছেন  তার তিনি। এক সম্ভ্রান্ত পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন শামীম ওসমান।

মিরর বাংলাদেশ পরিবারের পক্ষ থেকে শামীম ওসমানকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা। শুভ জন্মদিন, নারায়ণগঞ্জের গণমানুষের প্রানপ্রিয় নেতা। 

শামীম ওসমান এমপির বাবার নাম একেএম সামসুজ্জোহা। তিনি ছিলেন ভাষা সৈনিক, স্বাধীনতা সংগ্রামের অন্যতম সংগঠক, আওয়ামীলীগের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য, বঙ্গবন্ধুর ঘনিষ্ট সহচর, সাবেক গণপরিষদের সদস্য, মরণোত্তর স্বাধীনতা পুরস্কারপ্রাপ্ত। ১৯৮৭সালের ২০ ফেব্রুয়ারী ইন্তেকাল করেন সামসুজ্জোহা। শামীম ওসমানের দাদা খান সাহেব ওসমান আলী ছিলেন আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাকালীন সদস্য। শামীম ওসমানের মা নাগিনা জোহা ২০১৬ সালের ৭ মার্চ ইন্তেকাল করেন।

শামীম ওসমানের স্ত্রীর নাম সালমা ওসমান লিপি। তার এক ছেলে  ও এক মেয়ে রয়েছেন।

শামীম ওসমানের একমাত্র ছেলে অয়ন ওসমান ইতোমধ্যে তারুণ্যের আইডল হিসেবে বেশ জনপ্রিয়তা অর্জন  করেছেন।

শামীম ওসমানের বড় ভাই নাসিম ওসমান ছিলেন নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের এমপি। ২০১৪ সালের ৩০ এপ্রিল তিনি মৃত্যু বরণ করেন। মেঝ ভাই সেলিম ওসমান নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের এমপি ও বিকেএমইএ এর সভাপতি।

নারায়ণগঞ্জ আওয়ামী লীগের প্রভাবশালী পরিবারের সদস্য শামীম ওসমান ১৯৯৬-২০০১ মেয়াদে নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য ছিলেন।

২০০৮ সালের ২৯ ডিসেম্বর সংসদ নির্বাচনের পর ২০০৯ সালের ফেব্রুয়ারী মাসে প্রবাস থেকে  নারায়ণগঞ্জ ফিরে আসেন শামীম ওসমান।

পারিবারিক ঐতিহ্য
এ কে এম শামীম ওসমানের দাদা খান সাহেব এম ওসমান আলী ছিলেন তৎকালীন বৃটিশ ভারতের প্রখ্যাত ব্যক্তিত্ব, এম এল এ এবং আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য। ব্রিটিশ সরকার তার যোগ্যতার কারনে খান বাহাদুর ও খান সাহেব উপাধিতে ভূষিত করেন। তিনি বৃটিশ বিরোধী আন্দোলনে সাথে অভ্যুত্থান এবং স্বাধীনতার আন্দোলনে বঙ্গবন্ধুর অন্যতম সহচর হিসেবে সক্রিয়ভাবে ৭১ এর মুক্তিযুদ্ধে রাজনৈতিক সর্মথন দান করেন।

শিক্ষাগত যোগ্যতা
নারায়ণগঞ্জ বার একাডেমী থেকে এসএসসি, তোলারাম কলেজ থেকে এইচ এস সি পাশ করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে স্মাতক এবং নারায়ণগঞ্জ আইন কলেজ থেকে এল এল বি ডিগ্রি র্অজন করেন

রাজনৈতিক কর্মকান্ড
৮ম শ্রেণিতে পড়াশোনা অবস্থায় ছাত্র রাজনীতি দিয়ে শুরু করেন রাজনৈতিক বর্ণাঢ্য জীবন। পরর্বতীতে সরকারী তোলারাম কলেজ ছাত্রছাত্রী সংসদের ভিপি নির্বাচিত হন। ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও নির্বাচনের মাধ্যমে জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন। এরপর ১৯৯৬ সালে নারায়ণগঞ্জ ৪ (ফতুল্লা-সিদ্বিরগঞ্জ) আসনে আওয়ামীলীগ থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।