বগুড়ায় শিশুপুত্র হত্যার পর মায়ের আত্মহত্যা

635

মিরর বাংলাদেশ : বগুড়ার নন্দীগ্রামে তিন বছরের শিশু ছেলেকে হত্যার পর বিষপানে আত্মহত্যা করেছেন এক মা। বুধবার ভোরে উপজেলার বুড়ইল ইউনিয়নের পোঁতা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

মৃতরা হলেন বিপুল বর্মনের স্ত্রী লিপি রানী (২৬) ও তার একমাত্র ছেলে বাপ্পী বর্মণ।

প্রতিবেশীরা জানান, বিপুল বর্মন দুপচাঁচিয়া উপজেলায় একটি চাল কলে শ্রমিকের কাজ করেন। এ কারণে তিনি সেখানেই অবস্থান করেন। মাঝে মধ্যে স্ত্রী সন্তানের খবর নিতে বাড়িতে আসতেন। কিন্তু সম্প্রতি করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাবের কারণে যানবাহন না থাকায় বিপুল বর্মন নিয়মিত বাড়িতে আসতে পারেননি। বাড়িতে বিপুলের মা-বাবার সাথেই থাকতেন তার স্ত্রী-সন্তান। বুধবার ভোরে বিপুলের একমাত্র ছেলে বাপ্পীকে (৩) তার মা শ্বাসরোধে হত্যা করেন। এরপর নিজে বিষপান করেন। ঘরে গোঙ্গানীর শব্দ পেয়ে পাশের ঘরে ঘুমিয়ে থাকা শ্বশুর-শাশুড়ি জেগে উঠে দেখতে পান নাতির লাশ বিছানায় পড়ে আছে। প্রতিবেশীদের সহযোগিতায় পুত্রবধূকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

মৃত নারীর ভাই আনন্দ বর্মনের অভিযোগ, পাঁচ বছর আগে তার বোনের বিয়ে হয়েছে। বিয়ের পর থেকেই শাশুড়ি তাকে অপছন্দ করতেন। কারণে অকারণে তার বোনকে মানসিক নির্যাতন করতেন। এ কারণেই সন্তানকে হত্যা করে তার বোন আত্মহত্যা করতে পারে।

নন্দীগ্রাম থানার ওসি শওকত কবীর বলেন, ‘ঘটনাটি নিয়ে প্রতিবেশীরাও তেমন কিছু বলতে পারছেন না। মা-ছেলের লাশ উদ্ধার করে বগুড়া মর্গে পাঠানো হয়েছে