মালয়েশিয়ায় আটকেপড়া ১৫৪ বাংলাদেশী দেশে ফিরেছে

618

মিরর বাংলাদেশ :
করোনাভাইরাসে কারণে মালয়েশিয়ায় আটকে পড়া ১৫৪ বাংলাদেশী দেশে ফিরেছেন। বুধবার দুপুর ১২টার দিকে মালিন্দো এয়ারের চার্টার্ড ফ্লাইটে হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করেন তারা।
এ তথ্য নিশ্চিত করে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে প্রবাসী কল্যাণ ডেস্কের সহকারি পরিচালক ফখরুল ইসলাম নয়া দিগন্তকে বলেন, তারা সবাই নন-কোভিড এর স্বাস্থ্য সনদ নিয়ে ফিরেছেন। তাই তাদের সবাইকে হোম কোয়ারেন্টাইনে (নিজ নিজ বাসায়)পাঠানো হয়েছে।
এর আগে তাদের বহনকৃত বিমানটি বুধবার স্থানীয় সময় ১০টায় এবং বাংলাদেশ সময় সকাল ৮টায় কুয়ালালামপুর বিমানবন্দর থেকে রওনা দেয়।
জানা যায়, চিকিৎসা, উচ্চশিক্ষা, ব্যবসায়িক কাজে গিয়ে করোনা লকডাউনে এসব বাংলাদেশী মালয়শিয়ায় আটকা পড়েন। মালয়েশিয়াতে আটকে পড়া বাংলাদেশীদের মধ্যে তারাই প্রথম, যাদের দেশে পাঠানো হলো।
বাংলাদেশ হাই কমিশনের সহায়তায় তাদের দেশে ফেরানোর প্রক্রিয়াটি সমন্বয় করেন বাংলাদেশ-মালয়েশিয়া চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির সাবেক সভাপতি স্থপতি আলমগীর জলিলের নেতৃত্বে আসছেন তারা।
কুয়ালালামপুরের বাংলাদেশ হাইকমিশন এক বার্তায় জানিয়েছে, করোনাভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে মালয়েশিয়া সরকার কর্তৃক এমসিও (মুভমেন্ট কনট্রোল অর্ডার) জারির প্রেক্ষিতে যে সব বাংলাদেশী মালয়েশিয়ায় আটকা পড়েছেন তাদের প্রথম ব্যাচের (ইতিমধ্যেই যাদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছে) দেশে প্রত্যাবর্তনের জন্য মালিন্দো এয়ারের চার্টার্ড ফ্লাইটের এই বিশেষ ব্যবস্থা করা হয়েছে। এ চার্টার্ড ফ্লাইট পরিচালনায় বাংলাদেশের সঙ্গে সমন্বয় (সিএএবি অনুমোদন), মালয়েশিয়া সরকারের অনুমোদন, প্রত্যেক যাত্রীর পক্ষে দূতাবাসের সনদ ইস্যু এবং যাতায়াতের পুলিশ ক্লিয়ারেন্সসহ যাবতীয় কার্যক্রম হাইকমিশন সম্পন্ন করে।