লক্ষীপুরে স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণের পর হত্যা

492
মিরর প্রতিনিধি লক্ষীপুর

লক্ষ্মীপুরে সদরে  দিনে দুপুরে নিজ ঘরে স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণ করে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। শুক্রবার দুপুরে সদর উপজেলার দক্ষিন হামছাদী ইউনিয়নের নন্দনপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। পরে বিকালে পুলিশ নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করে।

নিহতের স্বজন ও পুলিশ জানায়, ওই স্কুল ছাত্রী হিরা মনি (১৪) সকালে একই গ্রামের তার নানা বাড়ি থেকে নিজ বাড়ি আসেন। তার মো. হারুনুর রশিদ অসুস্থ্যজনিত অবস্থায় ঢাকায় হাসপাতালে ভর্তি থাকায় তার মাসহ পরিবারের অন্য সদস্যরা সবাই ঢাকায় অবস্থান করছিলেন। অসুস্থ্য বাবাকে দেখতে ঢাকায় যাওয়ার জন্য জামা কাপড় নিতে নানা বাড়ি থেকে নিজ বাড়িতে আসলে দুপুরে নিজ বাড়িতে ঘরের ভিতরের একা পেয়ে তাকে ধর্ষণ করে হত্যা করা হয়। পরে দুপুরের খাবার খেতে নানার বাড়িতে না যাওয়ায় তার নানী ওই বাড়িত এসে হিরা মনিকে তাদের ঘরে বিবস্ত্র অবস্থায় মৃত পড়ে থাকতে দেখেন। এ সময় তার চিৎকারে আশে পাশের লোকজন এসে পুলিশকে খবর দেয়। পরে খবর পেয়ে সদর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে মরদেহ উদ্ধার করে হাসপাতালের মর্গে পাঠায়।

নিহত হিরা মনির মামা শাহজাহান বলেন, হিরা মনি আমাদের বাড়িতে ছিল। সকালে তাকে পালেরহাট নামিয়ে দিয়ে যাই। বিকেলে এমন ঘটনা শুনতে হবে, তা কল্পনাও করিনি। যারা আমার ভাগ্নিকে হত্যা করেছে তাদের গ্রেফতার করে বিচারের দাবি জানায়।

পালেরহাট পাবলিক হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষক বেলায়েত হোসেন খান জানান, হিরা মনি ওই স্কুলের নবম শ্রেণির মেধাবী ছাত্রী ছিল। যারা তাকে নিষ্ঠুরভাবে হত্যা করেছে, সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে তাদেরকে বিচারের আওতায় আনার দাবি জানাচ্ছি।

এদিকে স্কুল ছাত্রী ধর্ষণ ও হত্যাকান্ডের ঘটনায় বিক্ষুব্ধ হয়ে উঠেছেন স্থানীয় এলাকাবাসী। তারা এ ঘটনার সুষ্ঠ তদন্ত করে জড়িদদের দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির দাবি জানান।

লক্ষ্মীপুর সদর থানার ওসি (তদন্ত) মোসলেহ উদ্দিন জানান, ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে ছাত্রীর লাশ উদ্ধার ও আলামত জব্দ করা হয়েছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণ করে হত্যা করা হয়েছে। ঘটনার সাথে জড়িতদের খুঁজে বেরা করে গ্রেফতারের চেষ্টা চালাচ্ছে পুলিশ