হুইল চেয়ারে সমাবর্তনে গ্র্যাজুয়েট মাসুদ রানা

1077

এসএসসি পাসের পর ভর্তি হন উচ্চ মাধ্যমিকে, ক্লাস করেন তিন মাস। বেশ ভালোই চলছিল দিনগুলো। হঠাৎই জীবনে নেমে আসে কালো অধ্যায়। ২০০৮ সালের ৪ জানুয়ারি ছোট ভাইকে নিয়ে হাসপাতালে যাওয়ার পথে মর্মান্তিক দুর্ঘটনার শিকার হন। স্পাইনাল কর্ড ইনজুরিতে আক্রান্ত হয়ে হারিয়ে ফেলেন উঠে দাঁড়ানোর ক্ষমতা। তবুও জীবন থেমে থাকেনি। পরিবারের সহযোগিতা আর নিজের অদম্য ইচ্ছাশক্তিতে শেষ করেছেন স্নাতক ও স্নাতকোত্তর। করেছেন চাকরিও।

বলছিলাম তেজগাঁও সরকারি কলেজের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগ থেকে স্নাতক ও ঢাকা কলেজ থেকে স্নাতকোত্তর করা মাসুদ রানার কথা। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ৫২তম সমাবর্তনে ঢাকা কলেজ ভ্যেনুতে মামাতো ভাইকে নিয়ে হাজির হয়েছেন মাসুদ। এই প্রতিবেদকের সঙ্গে দেখা হয় সেখানেই। পরে জাগো নিউজকে শুনিয়েছেন নিজের জীবন সংগ্রাম আর সাফল্যের গল্প।

মাসুদ জানান, কাজিরপাড় সমাজকল্যাণ দিঘির উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ২০০৭ সালে এসএসসি পাস করে ভর্তি হন লক্ষ্মীপুর দালাল বাজার ডিগ্রি কলেজে। তিন মাস না যেতেই দুর্ঘটনার শিকার হন। ছোট ভাইকে নিয়ে হাসপাতালে যাওয়ার পথে বেবিটেক্সি আর ট্রাক্টরের মুখোমুখি সংঘর্ষে স্পাইনাল কর্ডে আঘাতপ্রাপ্ত হয়ে চলাচলের ক্ষমতা হারান। দীর্ঘ এক বছর চিকিৎসা শেষে আলোর মুখ দেখেননি। শেষে হুইল চেয়ারে বসেই উচ্চ মাধ্যমিকের ক্লাসে ফেরেন। ২০১০ সালে এইচএসসি পাস করেন।